২১ মে ২০২২, শনিবার, ০৬:১০:১৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গোয়াইনঘাট উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম আম্বিয়া কয়েছ এর পক্ষ থেকে ঈদ শুভেচ্ছা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হুমায়ুন কবিরের ঈদ শুভেচ্ছা বাণী লুটপাট আর স্বার্থ হাসিলে ব্যস্ত চেয়ারম্যান আঃ রশিদ সওদাগর সংযোগ সড়ক না থাকায় কাজে আসছে না সেতুগুলো ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্যেই রাশিয়ার ‘বন্ধু’ দেশকে ‘গোপনে’ এইচকিউ-২২ মিসাইল দিল চীন জাপানে আট দশক ধরে ইসলামের আলো ছড়াচ্ছে কোবের মসজিদ ২০৩০ সালে দুইবার আসবে পবিত্র রমজান গোতাবায়ার কার্যালয়ের সামনে স্থায়ী তাবু গেড়েছে বিক্ষোভকারীরা! জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর পূর্ণাঙ্গ ভাষণ মেডিকেলে চান্স পাওয়া সেই শিক্ষার্থীর দায়িত্ব নিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান


সিলেট তামাবিল মহাসড়ক টমটম ইজিবাইকের দখলে
জৈন্তাপুর প্রতিনিধি
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৯-০৪-২০২২
সিলেট তামাবিল মহাসড়ক টমটম ইজিবাইকের দখলে


নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সিলেট-তামাবিল মহাসড়ক দেদারছে চলছে নম্বার বিহীন টোকন চালিত সিএনজি (অটো রিক্সা), সিএনজি চালিত ইজিবাইক, ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক ও টমটম, শিশু চালক দিয়ে চলছে লক্ষর ঝকর লেগুনা, পিকআপ। যখন তখন হচ্ছে দূর্ঘটনা, হচ্ছে প্রাণহানি। সংশ্লিষ্ট সড়ক প্রশাসন নিরব, দেখার কেউ নেই। সরজমিনে সিলেট তামাবিল মাহাসড়ক ঘুরে দেখা যায়, সরকারের নিষেদাজ্ঞা অমান্য করে সিলেট-তামাবিল, সিলেট-কানাইঘাট, সিলেট-গোয়াইনঘাট সড়কে দেদারছে চলছে লক্ষর ঝকর লেগুনা, পিকআপ, সিএনজি (অটো রিক্সা), সিএনজি চালিত ইজিবাইক, ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক ও টমটম। আর এসব পরিবহণ গুলো চালকের দায়িত্ব পালন করছেন বেশিরভাগ শিশুরা। ফলে যখন তখন সিলেট-তামাবিল রোড, সিলেট-দরবস্ত-কানাইঘাট রোড, সিলেট-সারীঘাট-গোয়াইনঘাট রোডে গুলোতে ঘটেই চলছে মারত্বক দূর্ঘটনা। দূর্ঘটনায় প্রাণহানি সহ পঙ্গুত্ব বরণ করছে অনেকেই। দূর্ঘটনা ফলে কোন কোন পরিবার নিঃস্ব হয়ে ভিক্ষুকের পেশা গ্রহণ করতে হচ্ছে। সড়ক পরিবহন মন্ত্রনালয় সহ সরকারের কড়া নির্দেশনা থাকলেও সংশ্লিষ্ট সড়ক প্রশাসন, হাইওয়ে পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না। এছাড়া দূর্ঘটনা পাওয়া যায়না হাইওয়ে পুলিশকে। অতচ বৃহত্তর উত্তর সিলেটের পর্যটন খ্যাত তিন উপজেলা যাত্রী সাধারণ, সচেতন মহল, শিক্ষক সমাজ, ছাত্র সমাজ সহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার লোকজনের দেখতে পাওয়া যায় সিলেট তামাবিল মহাসড়কে বিভিন্ন অংশে কাগজপত্র তল্লাশীর নামে চাঁদা আদায় করতে। এছাড়া সিলেটের পর্যটন খ্যাত উপজেলা গুলো হতে পর্যটক বিমুখ করতে পর্যটকবাহী বাস দাঁড় করিয়ে চাঁদা আদায় করতে। চাঁদা আদায়, টোকন পরিচালিত লাইসেন্স বিহীন নিয়ন্ত্রিত সিএনজি অটোরিক্সা, ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক-টমটম চলাচলের সুযোগ করে দিচ্ছেন সড়ক সংশ্লিষ্ট হাইওয়ে পুলিশের কতিপয় লোকজনেররা। ফলে অহরহ ঘটছে সড়ক দূর্ঘটনা। গত ২৫ মার্চ নম্বার বিহীন টোকন চালিত সিএনজি অটো রিক্সার ধাক্কায় গোয়াইনঘাট সড়কে দরবস্ত ইউপির করগ্রামের হাসান আহমদ নামে শিশু দূর্ঘনার গুরুত্বর আহত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। গত ৪এপ্রিল দরবস্ত কানাইঘাট সড়কের চাক্তায় টমটম লেগুনার মুমোমুখি সংঘর্ষে ৫জন গুরুত্বর আহত হন। সর্বশেষ ৬মার্চ সিলেট গ্যাস ফিল্ডের ৭নং কুপের সম্মুখে একই ভাবে ব্যাটারী চালিত দুটি টমটম, বাস ও মটরসাইকেল দূর্ঘটনায় ঘটনাস্থলে শিশু সহ তিনজন নিহত হন এবং ডাক্তার, সমাজসেবী, নার্স সহ অন্তত ২০জন গুরুত্বর আহত হন। এসব ঘটনার পর সংশ্লিষ্ট সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের দায়িত্বপ্রাপ্ত হাইওয়ে পুরিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পাওয়া যায়নি এমনকি লাশ উদ্ধার করতে হয় থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকরা। সাধারণ বাসিন্দা আমিন আহমদ, নাজিম উদ্দিন, সমছির উদ্দিন, ইলিয়াছ আলী, হুমায়ুন আহমদ, কবির মিয়া, মো. আব্দুল্লাহ সহ শতাধিক ব্যক্তি বলেন, হাইওয়ে পলিশের টোকন বানিজ্যের কারনে সিলেট-তামাবিল, সিলেট-কানাইঘাট, সিলেট-গোয়াইনঘাট সড়কে দেদারছে চলছে লক্ষর ঝকর লেগুনা, পিকআপ, সিএনজি (অটো রিক্সা), সিএনজি চালিত ইজিবাইক, ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক ও টমটম এদের রিরুদ্ধে তেমন কোন আইনগত ব্যবস্থা না থাকায় এবং অর্থ লোভী পরিবহন মালিকরা অধিক মুনাফা লাভের জন্য লাইসেন্স বিহীন শিশু চালকদের হাতে তাদের গাড়ী তুলে দিয়ে বৃহত্তর উত্তর সিলেটের তিন উপজেলা জৈন্তাপুর গোয়াইনঘাট ও কানাইঘাটেরযাত্রী সাধারণ পথচারীদের পরিকল্পিত ভাবেই দূর্ঘটনার নামে হত্যা সহ পঙ্গুত্ব করা হচ্ছে। তারা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান। এবিষয়ে জানতে হাইওয়ে থানা পুলিশের সাথে বার বার যোগাযোগ করা হলে তারা ফোন রিসিভ করেননি। জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর আহমদ এসব দূর্ঘটনার কথা স্বীকার করে বলেন, আমার থানা এলাকাধীন যে কোন দূর্ঘটনায় থানা পুলিশ আন্তরিকতার সহিত কাজ করছে। এছাড়া থানা এলাকার আইন শৃঙ্খলা রক্ষায়, মাদক নিয়ন্ত্রন সহ সকল কাজই থানা পুলিশের দেখতে হচ্ছে। কিছু বিষয় ও কাজ আমাদের হাতে নেই। সেই বিষয়গুলি নিয়ে উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগের পরামর্শদেন। জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আল বশিরুল ইসলাম এবং জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ বলেন, আগামী জেলা আইন শৃঙ্খলা বৈঠকে বিষয়টি আমরা উত্তাপন করব। এই মহাসড়কে দূর্ঘটনারোধ কল্পে নিয়মিত নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট অভিযানের জন্য জোর দাবী জানান।

শেয়ার করুন