০৪ ডিসেম্বর ২০২১, শনিবার, ১০:০৭:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আপনার খাদ্যাভ্যাসেই চুল হবে সুন্দর লটারি জিতে ভারতের সাংবাদিকদের সংসদে ঢুকতে হচ্ছে টেকনাফে সাড়ে সাত হাজার পিস ইয়াবাসহ রোহিঙ্গা আটক চাঁদাবাজির শীর্ষে ঢাকা সিটি মুগদা সবুজবাগ মিরপুর মোহাম্মদপুরসহ সবখানে বাড়ি করতে দিতে হয় সরকারি দলকে নগদ টাকা নির্মাণসামগ্রী কিনতে হয় তাদের কাছ থেকেই, নেতাদের অভিযোগ করে লাভ হয় না, ভাগ পান সবাই কর্মজীবী বাবা মায়ের শিশুর প্রতি যত্ন টেকনাফে র‍্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১ ৩১ জানুয়ারির মধ্যে সব নির্বাচন শেষ করবে ইসি নাফনদীতে বিজিবির অভিযানে ৬০ হাজার ইয়াবাসহ আটক ১ মেয়র আব্বাসের বিরুদ্ধে ১০ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ করোনা আরও ৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৬১


ঝুঁকি নিয়ে পারাপার গোয়ালন্দে দেবে যাওয়া ব্রিজ দিয়ে
ভোরের ধ্বনি অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট করা হয়েছে : ১৭-১১-২০২১
ঝুঁকি নিয়ে পারাপার গোয়ালন্দে দেবে যাওয়া ব্রিজ দিয়ে


রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নে তেনাপচা এলাকায় বেড়িবাঁধের খালের উপর দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে নির্মিত ব্রিজটি মাঝখান দেবে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। আর এই ব্রিজ দিয়েই প্রতিনিয়ত চলছে হালকা যানবাহন। ফলে যেকোনো সময় ব্রিজটি ধসে বড় ধরণের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। তারা দ্রুত ব্রিজটি সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন।

জানা গেছে, গত বন্যায় পানির তীব্র স্রোতে ব্রিজের আশপাশের কয়েকটি বসতভিটা ও একটি কাচা রাস্তা খালে ধসে যায়। পরে ব্রিজটির নীচে ও পাশ থেকে মাটি সরে যাওয়ায় মাঝখান থেকে ভেঙ্গে দেবে যায়। সরজমিনে দেখা গেছে, গত ১৫দিন যাবৎ ব্রিজটি মাঝখান থেকে ভেঙ্গে দেবে গেছে। গুরুত্বপূর্ণ ব্রিজটি দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকলেও রিক্সা, অটোরিকশা, ভ্যান, মাহেন্দ্র, মোটর সাইকেলের মতো হালকা যানবাহন ও লোকজন ঝুঁকি নিয়ে ব্রিজটি দিয়ে চলাচল করছে।

দেবগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হাফিজুল ইসলাম বলেন, প্রায় ২০ বছর আগে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়েছিল। বর্তমানে ব্রিজটি দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে গেছে। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে জানিয়েছি। এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আবু সায়ীদ বলেন, ২০-২০ বছর আগে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়েছিল। তবে সড়কটি এলজিইডির অধীনে। আমরা দেবে যাওয়া ব্রিজটি সরেজমিনে প্রদর্শন করেছি। নতুন ব্রিজ নির্মাণের ব্যাপারে এলজিইডির সঙ্গে আলাপ করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজিজুল হক খান জানান, গত মঙ্গলবার দুপুরে সরজমিনে ব্রিজটি পরিদর্শন করেছি। ব্রিজটি ভেঙ্গে যাওয়ার আগেই ওখানে আরেকটি নতুন ব্রিজ নির্মাণ করার বিষয়ে আমি সরকারের ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে যোগাযোগ করেছি। আপাতত জনসাধারণকে একটু সতর্কতার সঙ্গে চলাচল করতে হবে।

শেয়ার করুন