০৪ ডিসেম্বর ২০২১, শনিবার, ১১:২৪:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পাটগ্রামে ৬৪৮ বোতল ফেন্সিডিলসহ দুই মাদক কারবারি গ্রেফতার জুতার ভেতরে যেভাবে পাচার হচ্ছিলো ২০০ ভরি সোনা ভাণ্ডারিয়ায় নিখোঁজ স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার, আটক ৩ জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে নীলফামারীতে একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে র‍্যাব আপনার খাদ্যাভ্যাসেই চুল হবে সুন্দর লটারি জিতে ভারতের সাংবাদিকদের সংসদে ঢুকতে হচ্ছে টেকনাফে সাড়ে সাত হাজার পিস ইয়াবাসহ রোহিঙ্গা আটক চাঁদাবাজির শীর্ষে ঢাকা সিটি মুগদা সবুজবাগ মিরপুর মোহাম্মদপুরসহ সবখানে বাড়ি করতে দিতে হয় সরকারি দলকে নগদ টাকা নির্মাণসামগ্রী কিনতে হয় তাদের কাছ থেকেই, নেতাদের অভিযোগ করে লাভ হয় না, ভাগ পান সবাই কর্মজীবী বাবা মায়ের শিশুর প্রতি যত্ন টেকনাফে র‍্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১


কুলের ফুল থেকে মধু
সিনিয়র রিপোর্টার , এ কে আনোয়ার
  • আপডেট করা হয়েছে : ১০-১১-২০২১
কুলের ফুল থেকে মধু


ঝিনাইদহের মহেশপুরে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে শুরু হয়েছে কুলের ফুল থেকে মৌমাছি দ্বারা মধু সংগ্রহ। অল্প সময়ে বাড়তি মধু সংগ্রহ করতে পেরে খুশি খামারিরা। মধু উৎপাদন বৃদ্ধি এবং পরাগায়নের মাধ্যমে ফুলের ফলন বাড়াতে এমন উদ্যোগ বলছেন কৃষি কর্মকর্তা। দেখা যায় সাধারণত সরিষা ফুল কিংবা লিচু ফুলের সময় মৌয়ালী বা খামারিরা মৌমাছির মাধ্যমে মধু সংগ্রহ করে থাকে। আর এ সময় অনেকটা অলস সময়  কাটে তাদের। মাছি বাঁচিয়ে রাখতে প্রয়োজন হয় বাড়তি খাবারের। এতে লোকসানে পড়েন খামারিরা। এমন দিক বিবেচনা করে ঝিনাইদহের মহেশপুরে দ্বিতীয় বারের মতো শুরু হয়েছে কুল গাছের ফুল থেকে মধু সংগ্রহ। রাজবাড়ী, মাদারীপুরসহ আশপাশের বিভিন্ন জেলা থেকে খামারিরা বাক্স (কলোনি-মৌমাছির বাক্স) নিয়ে হাজির হন কুল গাছে ফুল আসার সঙ্গে সঙ্গে। সাধারণত সকালে এবং বিকালের দিকে মাছিগুলো ছুটে বেড়ায় ফুলে ফুলে। সেখান থেকে মধু নিয়ে ফেরেন কলোনিতে। এই মৌসুমে গড়ে ২৫ দিনে তিন বার মধু সংগ্রহ করা যায়। এতে খরচের তুলনায় লাভও হয় দ্বিগুণ বলেন খামারিরা। তবে খামারিদের অভিযোগ এখান থেকে সংগ্রহ করা যায় খুব ভালো মানের মধু। তবে কুল চাষিদের অসচেতনতায় খেতে বিষ প্রয়োগে অনেক মাছিই মারা যাচ্ছে। মহেশপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাসান আলী জানান, এই মৌসুমে মধু উৎপাদন হয় না। ফলে খামারিদের লোকসান গুনতে হয়। তাই এই লোকসানকে পিছনে ফেলে উৎপাদন বাড়িয়ে চাষিদের উৎসাহিত করতেই এমন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি জানান, গত বছর প্রথমবারের মতো তিনজন খামারির ৫৫৫টি মৌ বাক্স থেকে ৩ হাজার কেজি মধু সংগ্রহ করা হয়েছিল। এ বছর ১০ জন খামারির ৯৬০টি বাক্স থেকে ৫ হাজার কেজি মধু সংগ্রহের লক্ষ্য মাত্রা ধরা হয়েছে।

শেয়ার করুন