২১ মে ২০২২, শনিবার, ০৭:২১:৩৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গোয়াইনঘাট উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম আম্বিয়া কয়েছ এর পক্ষ থেকে ঈদ শুভেচ্ছা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হুমায়ুন কবিরের ঈদ শুভেচ্ছা বাণী লুটপাট আর স্বার্থ হাসিলে ব্যস্ত চেয়ারম্যান আঃ রশিদ সওদাগর সংযোগ সড়ক না থাকায় কাজে আসছে না সেতুগুলো ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্যেই রাশিয়ার ‘বন্ধু’ দেশকে ‘গোপনে’ এইচকিউ-২২ মিসাইল দিল চীন জাপানে আট দশক ধরে ইসলামের আলো ছড়াচ্ছে কোবের মসজিদ ২০৩০ সালে দুইবার আসবে পবিত্র রমজান গোতাবায়ার কার্যালয়ের সামনে স্থায়ী তাবু গেড়েছে বিক্ষোভকারীরা! জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর পূর্ণাঙ্গ ভাষণ মেডিকেলে চান্স পাওয়া সেই শিক্ষার্থীর দায়িত্ব নিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান


মুদিদোকান দিয়ে সংসার চালাচ্ছেন সেই রাসেল
ভোরের ধ্বনি অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট করা হয়েছে : ১১-১০-২০২১
মুদিদোকান দিয়ে সংসার চালাচ্ছেন সেই রাসেল


ছিলেন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের গাড়ির চালক। সেই গাড়ি চালনা অবস্থায় তর্ক হয় গ্রিন লাইন পরিবহনের বাসের চালকের সঙ্গে। মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারে ঐ তর্ক চলাকালে গ্রিন লাইনের চালক গাড়ি তুলে দেন রাসেলের পায়ের ওপর।

বিচ্ছিন্ন হয় তার বাম পা। পরে হাইকোর্টের নির্দেশে গ্রিন লাইন পরিবহন কর্তৃপক্ষ ক্ষতিপূরণ বাবদ ৩৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা দেন। যার মধ্যে ৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা ছিল চিকিত্সা বাবদ। করোনাকালে সংসার চালাতে তিনি ইতিমধ্যে গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে দিয়েছেন মুদি দোকান। যার বয়স চার মাস। সেই মুদি দোকানের আয় দিয়েই চলছে তার সংসার।

এ প্রসঙ্গে রাসেল সরকার ইত্তেফাককে বলেন, ৩০ লাখ টাকার মধ্যে ২০ লাখ টাকা ফিক্সড ডিপোজিট (এফডিআর) করে রেখেছি। আর বাকি টাকার মধ্যে একটি মুদি দোকান দিয়েছি। তিনি বলেন, করোনার মধ্যে ঘরেই বসে ছিলাম। পরে চিন্তা করলাম সংসার কীভাবে চলবে। এরপরই দোকান দেই। এছাড়া আমার স্ত্রী বাসায় টেইলরিংয়ের কাজ করছেন। সেখান থেকে কিছু আয় হচ্ছে। সব মিলিয়ে আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ২৮ এপ্রিল মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারে গ্রিন লাইন পরিবহনের বাসের চালকের খামখেয়ালিপনায় পা হারান রাসেল। সেই ঘটনায় কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতি হাইকোর্টে রিট করেন। ঐ রিটের রায়ে হাইকোর্ট রাসেলকে ৫০ লাখ টাকা দেওয়ার জন্য গ্রিন লাইন পরিবহন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়। পরবর্তীকালে আইনজীবীর মধ্যস্থতায় ৩০ লাখ টাকা রাসেলকে দেওয়া হয়।

রাসেলের আইনজীবী খোন্দকার শামসুল হক রেজা জানান, আমরা মোট ৩০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ পেয়েছি। আর চিকিত্সাবাবদ ৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা। যেহেতু এ অর্থ আদালতের আদেশ অনুসারে পেয়েছি, তাই এটি আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

শেয়ার করুন