২১ জানুয়ারী ২০২২, শুক্রবার, ০৫:৫২:৫৩ পূর্বাহ্ন


বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী ‘কক্সবাজারের সাথে সারাদেশের বিমানের সরাসরি নেটওয়ার্ক তৈরি করা হচ্ছে’
এ কে সাংবাদিক আনোয়ার
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৭-১০-২০২১
বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী ‘কক্সবাজারের সাথে সারাদেশের বিমানের সরাসরি নেটওয়ার্ক তৈরি করা হচ্ছে’


বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেছেন, কক্সবাজারে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আগমন বৃদ্ধির জন্য বাংলাদেশ বিমানের যাত্রী সেবার মান বাড়াতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এজন্য কক্সবাজারের সাথে সারাদেশের বিমানের সরাসরি নেটওয়ার্ক তৈরি করা হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যাত্রীরা সরাসরি কক্সবাজারে আসতে পারবে।

কক্সবাজার যেহেতু একটি আন্তর্জাতিক পর্যটন সমৃদ্ধ স্থান, পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে রয়েছে। তাই কক্সবাজার বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করা হচ্ছে। দেশ-বিদেশ থেকে পর্যটকরা এখন সরাসরি কক্সবাজারে আসতে পারবে বলেও জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে কক্সবাজারের পর্যটন মোটেল শৈবালে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। সৈয়দপুর বিমানবন্দর থেকে কক্সবাজারে সরাসরি বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট উদ্বোধন উপলক্ষে এই প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়।

প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি জানান, কক্সবাজারকে একটি আধুনিক আন্তর্জাতিক মানের পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে সরকার বদ্ধপরিকর। এজন্য কক্সবাজারের দর্শনীয় স্থানগুলোকে সৌন্দর্য মণ্ডিত করে গড়ে তুলতে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দর্শনীয় স্থানগুলোকে বিশ্বমানের করে সাজানো হবে।

বাংলাদেশ বিমানের পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাজ্জাদুল হাসান জানান, বাংলাদেশ বিমানের যাত্রী পরিসেবার মান বাড়ানো হচ্ছে। বিমান বহরে বর্তমানে ২১টি ছোট-বড়ো উড়োজাহাজ রয়েছে। বর্তমান গন্তব্যসমূহ রাখার পাশাপাশি পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে নতুন নতুন গন্তব্য চালু করার প্রস্তুতিও নিচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

বিমান বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সপ্তাহে দুবার এই রুটে বিমান চলাচল করবে। প্রতি শনিবার দুপুর ১টা ২৫ মিনিটে কক্সবাজার থেকে এবং বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা ২০ মিনিটে সৈয়দপুর থেকে ছেড়ে যাবে। জনপ্রতি সর্বনিম্ন ভাড়া পড়বে ৫ হাজার ৯০০ টাকা। তবে উদ্বোধনী ফ্লাইটে প্রতি টিকিটের উপর ১৫ শতাংশ বিশেষ মূল্য ছাড় দেওয়া হয়েছে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান সাজ্জাদুল হাসান বললেন, অভ্যন্তরীণ পর্যটকও যেমন আমাদের বাড়াতে হবে, তেমনি আন্তর্জাতিক পর্যটকও বাড়াতে হবে। আন্তর্জাতিক রুটেও নতুন নতুন ফ্লাইট সংযুক্ত হচ্ছে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী আরও বলেন, আমরা চাচ্ছি সারা বিশ্ব থেকে, দেশের নানা স্থান থেকে পর্যটকরা কক্সবাজারে আসবে। আবার কক্সবাজার থেকে পর্যটকরা উত্তরবঙ্গের নান্দনিক স্থাপনাগুলো দেখতে যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিমান বাংলাদেশের বিভিন্ন কর্মকর্তা, কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আমিন আল পারভেজ, জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক শ্রাবস্তি রায়, কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

শেয়ার করুন